আমাদের নদী, জেলেজীবন ও পরিবেশ

 আতিক রহমান ঃ

গোলবুনিয়ার ঘাটে বাঁধা মাছ ধরা ট্রলার। আকাশটা মেঘলা তাই পায়রার পাড়ে জেলেদের একটু বিশ্রাম। আবহাওয়া ও বাতাসের গতিবেগের উপর সর্বদা লক্ষ্য রাখতে হয় জেলেদের। কারণ বরগুনার প্রধান দুটি নদীই খুব প্রমত্ত। বিষখালীতে জোয়ার ভাটার সময়ে থাকে প্রবল ঢেউ। পায়রাও সাগরের মোহনার দিকে অনেক উত্তাল। যদিও পায়রার বুকে এখন বিশাল চর। গোলবুনিয়া থেকে একটু উত্তরে গেলেই নদীর মাঝে দেখা যায় চরের রেখা। ভাটার সময়ে সেই চরে ফুটবল খেলা যায়। কখনো মাছ ধরা ট্রলারও আটকে যায়। এমনকি পুরাকাটা ফেরী চলাচলেও বাঁধা সৃষ্টি করে পায়রার চর। জেলে ও স্থানীয়দের দাবি, পায়রা নদীতে অতিসত্বর খনন কাজ জরুরী। পানির প্রবাহ যেন আগের মত সচল থাকে, সেই ব্যবস্থা এখনি গ্রহন না করলে নদীর দু’পাশের জীবনযাপনে প্রভাব পড়বে । উপকূলীয় মৎস্য সম্পদ কমে যাবারও আশংকা রয়েছে। নদী বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন এখন সারাদেশে চলছে। তাই আমাদের নদীকে বাঁচাতে, পায়রাকে যৌবনের রূপবৈচিত্র ফিরিয়ে দিতে, চর নামক বিষফোরা থেকে মুক্তি দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *