বরগুনার আমতলী থেকে আটক
এসপির নামে আইডি খুলে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর প্রতারণা

মো. আ. হান্নান। ২০ বছর বয়সী এ যুবক নিজেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র হিসেবে দাবি করেন। তবে নিজের পরিচয় আড়াল করে কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার হিসেবে ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে সখ্য গড়ে তুলতেন বড় বড় ব্যবসায়ী এবং সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে। একপর্যায়ে কৌশলে হাতিয়ে নিতেন মোটা অঙ্কের টাকা। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। অবশেষে ধরা পড়েছেন পুলিশের জালে।

কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপারের নামে ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণার অভিযাগে বরগুনা থেকে আ. হান্নান নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বরগুনা জেলার আমতলী থেকে তাকে আটক করা হয়।

হান্নান আমতলী উপজেলার হলুদিয়া দক্ষিণ তক্তাবুনিয়া গ্রামের নাসির প্যাদার ছেলে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার পর আদালতে নেয়া হলে তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

শনিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ জানান, আটক হান্নান কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপারের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে বিভিন্ন লোকজনের সঙ্গে প্রতারণা করে আর্থিক সুবিথা আদায় করছিল। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ সদর দফতরের সাইবার ক্রাইম ও পুলিশ ইন্টিলিজেন্সের সহায়তায় তাকে বরগুনা থেকে আটক করা হয়।

এ ব্যাপারে গত ৩ সেপ্টেম্বর কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়। গতকাল শুক্রবার তাকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত বিচারক কিশোরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশিকুর রহমান তার আট দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

 

অভিযুক্ত আ. হান্নান সাইবার অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন বলেও জানান পুলিশ সুপার।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) নাজমুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিম সুপার (অপরাধ) মো. মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) অনির্বাণ চৌধুরী, কিশোরগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবুবকর সিদ্দিকসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *