ম্যাচের শুরুতে রেকর্ড, শেষেও রেকর্ড রশিদের

ম্যাচের টস করতে নামা থেকে শুরু করে, সৌম্য সরকারের উইকেট নেয়া পর্যন্ত- পুরো ম্যাচেই রেকর্ড আর রেকর্ড গড়ে গেছেন আফগানিস্তান দলের অধিনায়ক রশিদ খান। তার সবশেষ রেকর্ডটি আবার অনন্য। যেখানে নেই তিনি ছাড়া আর কেউ।

মূলতঃ তাইজুল ইসলামের উইকেট নেয়ার মাধ্যমেই হয় রেকর্ডটি। সেটি হলো টেস্ট ক্রিকেটে অধিনায়কত্বের ডেব্যু ম্যাচে ফিফটি এবং দুই ইনিংসেই ৫ উইকেট নেয়ার রেকর্ড। টেস্টের এতদিনের ইতিহাসে এ কীর্তি দেখাতে পারেননি আর কোনো অধিনায়ক।

সাকিবের সঙ্গে টস করতে নেমেই জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়ক তাতেন্দা টাইবুর রেকর্ড ভেঙে সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট অধিনায়ক হয়েছেন রশিদ খান। ম্যাচের প্রথম দিন টস করার সময় তার বয়স ছিলো ২০ বছর ৩৫০ দিন।

এরপর ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে খেলেছেন ৫১ রানের ইনিংস এবং বল করতে নেমে মাত্র ৫৫ রানে শিকার করেছেন ৫টি উইকেট। অধিনায়কত্বের অভিষেক ম্যাচে ফিফটি ও ৫ উইকেট নেয়া চতুর্থ ক্রিকেটার ছিলেন তিনি। তার আগে ইংল্যান্ডের স্ট্যানলি জ্যাকসন, পাকিস্তানের ইমরান খান ও বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান দেখিয়েছিলেন এ কীর্তি।

তবে আগের তিনজনের কেউই দুই ইনিংসেই ৫ উইকেট কিংবা ম্যাচে ১০ উইকেট নিতে পারেননি। এ কাজটিই করে দেখিয়েছেন রশিদ। ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসেও রশিদ শিকার করেছেন ৬টি উইকেট। ফলে ম্যাচে তার পরিসংখ্যান হলো ৫১ ও ২৪ এবং ৫ ও ৬ উইকেট।

নিজের অধিনায়কত্বের অভিষেকে স্ট্যানলি জ্যাকসন ফিফটির সঙ্গে শিকার করেছিলেন ৫ উইকেট, ইমরান খানের সংগ্রহ ছিলো ফিফটি ও ৭ উইকেট এবং সাকিব আল হাসান ম্যাচে ৬ উইকেট নেয়ার পর হাঁকিয়েছিলেন ফিফটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *